ফ্রান্সে জিম্মি সঙ্কটের অবসান, বন্দুকধারীসহ নিহত ৫

নিউজ ডেক্স : পুলিশের গুলিতে বন্দুকধারী নিহত হওয়ার মধ্য দিয়ে ফ্রান্সের ত্রেবেসের সুপারমার্কেটে ‘জিম্মি’ সংকটের নাটকীয় অবসান ঘটেছে। এ ঘটনায় হামলাকারীসহ ৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন পুলিশসহ অন্তত ১২ জন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, শুক্রবার সকালে সুপারমার্কেটটিতে ওই বন্দুকধারীর অন্তত তিনজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আরও পাঁচ জন আহত হন। এক পর্যায়ে এক জিম্মির বিনিময়ে ফরাসি পুলিশের এক সদস্যকে হামলাকারীর হাতে তুলে দেয়া হয়। এরপরই দেশটির এলিট পুলিশের ঝটিকা অভিযানে ওই হামলাকারী নিহত হন।

এদিকে জিম্মি সংকটের সময় গুরুতর আহত পুলিশ কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল আর্নাউদ বেলট্রেম শুক্রবার মারা গেছেন বলে নিশ্চিত করেছে ফরাসি পুলিশ। এর ফলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৫ জনে।

জিম্মিদশা চলাকালে একজন বন্দির বিনিময়ে নিজেকে হামলাকারীর হাতে তুলে দিয়েছিলেন আর্নাউদ বেলট্রেম। তার জন্যই দ্রুত ও কম সংখ্যক হতাহতের মধ্য দিয়ে জিম্মি সংকট অবসান হয়। অসামান্য ভূমিকার জন্য নিহত এই পুলিশ কর্মকর্তাকে ‘নায়ক’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রন। আর দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরার্ড কলোম্ব টুইটারে লিখেছেন, আর্নাউদ বেলট্রেমের নায়কোচিত মনোভাব, সাহস ও আত্মদান কখনও ভুলবে না ফ্রান্স।

২৬ বছর বয়সী ওই বন্দুকধারীর নাম রেদোয়ান লাকদিম। মরোক্ক বংশোদ্ভূত এই তরুণ বন্দুকের পাশাপাশি ছুরি ও গ্রেনেড নিয়ে হামলা চালায়। লাকদিমের নাম আগে থেকেই ‘তালিকাভুক্ত’ ছিল বলে জানিয়েছে ফরাসি গোয়েন্দা সংস্থা।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়, হামলাকারী লাকদিম ‘ছোটখাটো অপরাধ’ করায় কর্তৃপক্ষের নজরে ছিল বলে জানিয়েছেন ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরার কুলুম্ব। মন্ত্রী বলেন, ‘তাকে কখনও জঙ্গি বলে সন্দেহ করা হয়নি। সে একাই এই হামলা চালিয়েছে।’

ফরাসি পুলিশ জানিয়েছে, বন্দুকধারী সুপার মার্কেটে ঢুকেই গুলি ছোড়ে। সেখানকার বিক্রয় কর্মী ও ক্রেতাদের জিম্মি করে। এরপর জিম্মিদের বিনিময়ে ২০১৫ সালের প্যারিস হামলায় সন্দেহভাজন আটক সালাহ আব্দে স্লামের মুক্তি দাবি করে।

স্থানীয় সময় শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে পার্বত্য শহর ত্রেবেসের ‘সুপার-ইউ’-এ হামলা হামলা চালায় বন্দুকধারী রেদোয়ান লাকদিম। হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গীগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস। এটিকে সন্ত্রাসী হামলা বলেই বর্ণনা করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে থেকে ফ্রান্সে বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে আইএস। এসব হামলায় অন্তত ২৪০ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে ২০১৫ সালের নভেম্বরে প্যারিস হামলায়ই নিহত হন ১৩০ জন।

Leave a Comment